জানুন বেশি জল খেলে দেহের কি কি সমস্যা হতে পারে -বেশি জল খাওয়ার কুফল। - News2news India

News2news India

India's leading news & job information web portal.

Breaking

Home Top Ad

সাবস্ক্রাইব করার জন্য ছবিতে ক্লিক করুন।

সাবস্ক্রাইব করার জন্য ছবিতে ক্লিক করুন।
ছবিতে ক্লিক করুন।

Thursday, August 16, 2018

জানুন বেশি জল খেলে দেহের কি কি সমস্যা হতে পারে -বেশি জল খাওয়ার কুফল।

অতিরিক্ত জল পান করেন ? প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত জল পান কিন্তু আপনার শরীরে খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে ? ভাবছেন একি আজব কথা? কিন্তু এটাই সত্যি।অতিরিক্ত জল পান কিন্তু ডেকে আনতে পারে বিপদ।
জল।

আমাদের শরীরের ৭০ % জল।আমাদের শরীর কে সুস্থ ও সতেজ রাখতে জলের অবশ্যই প্রয়োজন।জলই পারে আমাদের শরীর কে অনেক খারাপ অসুখ থেকে দূরে রাখতে।জল পান করলে আমাদের ত্বক ভালো থাকে,শরীর সতেজ থাকে,ওজন কমে,পেশির ব্যথা কমে ইত্যাদি।শরীর ভালো রাখতে আমাদের অবশ্যই জল পান করতে হবে।কিন্তু মনে রাখাবেন জল পান করুন প্রয়োজন অনুযায়ী ,অতিরিক্ত কখনই নয়।অতিরিক্ত জল পান করলে কি কি ক্ষতি হতে পারে আপনার শরীরের , দেখেনিন -
  • খাবার খাওয়ার সময় কখনই বেশি জল খাবেন না।খাবার খাওয়ার সময় বেশি জল খেলে আমাদের দেহে হজমে সহায়ক এনজাইম এবং আসিড এর কার্যক্ষমতা অনেকটাই কমে যায়।ফলে দেখা দিতে পারে হজমের সমস্যা।
  • অতিরিক্ত জল পান করলে শরীরে নুনের পরিমান কমে যায়।ফলে দেহে নুনের ভারসাম্য নষ্ট হয়।যার জেরে হতে পারে অনেক সমস্যা।
  • ভারী এক্সারসাইজের পর ভুলেও জল খাবেন না।এই সময় দেহের তাপমাত্রা বেড়ে যায়।ফলে ঠান্ডা জল খেলে শরীর বাইরের তাপমাত্রার ভারসাম্যে সামঞ্জস্য রাখতে পারেনা।এর জেরে হজমের সমস্যা হয়।
  • বেশি পরিমাণে জল পান করলে রক্তে সোডিয়ামের পরিমান কমে যায়।এর জেরে ক্লান্তি,মাথা ব্যাথা,খুম খুম ভাব,বমি বমি ভাব,বার বার প্রস্রাব ও হার্টের সমস্যা হয়।
  • বেশি জল খেলে দেহে পটাসিয়ামের পরিমান কমে যায়।ফলে বুকে ব্যথা হয়।
  • বেশি জল খেলে দেহে রক্তের পরিমান বাড়ে।ফলে ওই অতিরিক্ত রক্ত যখন আপনার হার্ট পাম্প করে ,তখন তার ওপর বাড়তি চাপ পড়ে।
  • বেশি জল পানে দেহের কোষ ফুলে যায়।যার ফলে অনেক সমস্যা দেখা দেয়।
  • আমাদের কিডনি ঘন্টায় আধা লিটার জল মূত্র আকারে নির্গত করতে পারে।তাই কিডনির ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত জল খেলে কিডনির ওপর চাপ পড়ে।
                         তাই জল অবশ্যই খান কিন্তু প্রয়োজন মতো।প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।ভালো থাকুন।সুস্থ থাকুন।

No comments:

Post bottom ad